Notice

নবরুপা ফ্যাশন হাউজ

boishakhi-man-and-woman600

১৯৭১-১৯৭২ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধের পরবর্তী সময়ে নবরুপা ফ্যাশন হাউজ প্রতিষ্ঠিত হয়।

হাউসঃ ২৭, রোডঃ ৭,  সেক্টরঃ ৩ ( থার্ড ফ্লোর) লতিফ ইম্পোরিয়াম,  উত্তরা মডেল  টাউন , ঢাকা ১২৩০।

ফোন: +৮৮ ০১৬৮৬৭২৩০৮০

ওয়েবসাইট: www.nabarupa.com

পোশাক-পরিচ্ছেদ

মহিলাদের পোশাক- বিয়ের শাড়ী বাদে সব ধরনের শাড়ী এখানে পাওয়া যায়। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো – টাঙ্গাইল শাড়ী, টাঙ্গাইল কাতান, রাজশাহী সিল্ক, লেডিস ফতুয়া, কামিজ, টপ, ও দেশী সুতি কাপড়।

পুরুষদের পোশাক – ফুল হাতা শার্ট, হাফ হাতা শার্ট, পাঞ্জাবী, পায়জামা, ট্রাউজার ও ফতুয়া।

ছোটদের  পোশাক- ছোটদের শার্ট, প্যান্ট, টি-শার্ট, লেহেঙ্গা, ফ্রক, এছাড়া সু, কসমেটিক্স পাওয়া যায়।

দাম

          পোশাকের নাম              মূল্য/দাম
টাঙ্গাইল শাড়ী সর্বনিম্ন -৫৫০ টাকা।সর্বোচ্চ-৪,০০০ হাজার টাকা।
টাঙ্গাইল কাতান সর্বনিম্ন-৪৫০ টাকা ।সর্বোচ্চ- ৬ হাজার টাকা।
রাজশাহী সিল্ক সর্বনিম্ন-৯৫০ টাকা।সর্বোচ্চ-৩,২৫০ টাকা।
লেডিস ফতুয়া সর্বনিম্ন-৪৫০টাকা।সর্বোচ্চ-  ৬০০ টাকা।
কামিজ সর্বনিম্ন- ১,৩০০ টাকা।সর্বোচ্চ- ১,৪০০ টাকা।
টপ সর্বনিম্ন- ১,২০০ টাকা।সর্বোচ্চ- ১,২৫০ টাকা।
ফুল হাতা শার্ট সর্বনিম্ন- ৭০০ টাকা।সর্বোচ্চ- ১,২৯০টাকা।
হাফ হাতা শার্ট সর্বনিম্ন- ৪৫০ টাকা।সর্বোচ্চ- ৭০০ টাকা।
পাঞ্জাবী সর্বনিম্ন- ৯৫০ টাকা।সর্বোচ্চ – ৩,২৫০ টাকা।
ট্রাউজার   ৪২০ টাকা।
ফতুয়া  সর্বনিম্ন- ৪৫০ টাকা।সর্বোচ্চ -৬০০ টাকা।
বাচ্চাদের শার্ট সর্বনিম্ন -৩০০ টাকা।সর্বোচ্চ – ৮০০ টাকা।
বাচ্চাদের প্যান্ট সর্বনিম্ন – ৪৫০ টাকা।সর্বোচ্চ – ৬০০ টাকা।
বাচ্চাদের টি-শার্ট সর্বনিম্ন- ১৫০ টাকা ।সর্বোচ্চ- ৩৬০ টাকা ।
ফ্রক সর্বনিম্ন- ২৫০ টাকা।সর্বউচ্চ- ৪,৫০০ টাকা।

খোলা-বন্ধের সময়সূচী 

প্রতিদিন সকাল ১০ টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত শো-রুম গুলো খোলা থাকে। সপ্তাহিক কোন বন্ধ নেই।

পোশাক-পরিবর্তনের ব্যবস্থা

পোশাকে যদি কোন সমস্যা ধরা পরে অথবা বাসায় গিয়ে দেখার পর ভাল না লাগে তাহলে সাত দিনের মধ্যে পরিবর্তন করে নেওয়া যায়। তবে অবশ্যই মানি রিসিট নিয়ে যেতে হয়।

মেম্বারশীপ

নতুন কোন ব্রাঞ্চে থেকে এক সাথে ৫০০০ হাজার টাকার পোশাক ক্রয় করলে, সে যে কোন ব্রাঞ্চের সদস্য হিসেবে গন্য হয়। সদস্যকে একটি ডিসকাউন্ড কার্ড প্রদান করা হয়। যে কোন ব্রাঞ্চে কার্ড ইস্যু করলে তাকে ডিকসকাউন্ড দেওয়া হয়।

গাড়ী পাকিং ব্যবস্থা

লালমাটিয়া, বনানী ও  চট্রগ্রাম শাখায় গাড়ী পাকিং এর  ব্যবস্থা আছে। ঢাকার ওয়ারী শাখা দুইটিতে গাড়ী পাকিং এর কোন ব্যবস্থা নেই।

বিশেষ ছাড়ের ব্যবস্থা

নবরুপাতে বিশেষ ছাড়ের ব্যবস্থা নেই। তবে ঈদ অথবা পূজাঁতে মাঝে মধ্যে ছাড় দেওয়া হয়।

 

 

Print
error: Content is protected !!