Notice

ইনষ্টিটিউট অব মেডিক্যাল এন্ড প্যারামেডিকেল টেকনোলজী সিলেট

এটি বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের একটি অনুমোদিত স্বাস্থ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠানটি শুধুমাত্র স্বাস্থ্য শিক্ষার বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিষয়ভিত্তিক সার্টিফিকেট কোর্স এবং ডিপ্লোমা কোর্স প্রদান করে থাকে। ইবনে আকন্দ ফাউন্ডেশনের একটি প্রকল্প এটি, প্রতিষ্ঠাকাল ২০০৬।

ঠিকানা এবং অবস্থান

ইনষ্টিটিউট অব মেডিক্যাল এন্ড প্যারামেডিকেল টেকনোলজী সিলেট

গভ: রেজি: নং s-s 50446(159)05

ঢাকা অফিস

হাউসঃ ১২, রোডঃ ৩৩, সেক্টরঃ ০৭, উত্তরা মডেল টাউন, ঢাকা ১২৩০।

ফোন: +৮৮ ০১৭১১-৩৩৭০১৯, +৮৮ ০১৭১১ ০৯২১৪১৬

ইমেইল: jahirakand290@gmail.com

ওয়েব সাইট:  http://www.imptsylhet.com/

কোর্স এবং পাঠ্য পরিচিতি

  • এখানে কোর্স সংশ্লিষ্ট ফার্মেসী ব্যবস্থাপনা, মেডিসিন, সার্জারী, স্ত্রীরোগ ও ধাত্রী বিদ্যা, এনাটমি ফিজিওলজি, কমিউনিটি মেডিসিন, ফার্মাকোলজী, নাক-কান-গলা রোগ, প্যাথলজী এবং ফাষ্ট এইড (প্রাথমিক চিকিত্সা) পড়ানো হয়।
  • এছাড়াও এখানে স্যালাইন দেওয়া, জ্বর মাপা, ব্লাড প্রেসার মাপা, রেকর্ড মেইনটেইন করা, কম্পিউটারের মাধ্যমে ফার্মেসীর হিসাব করা ইত্যাদি প্র্যাকটিকেল শেখানো হয়।
  • উল্লেখযোগ্য কোর্সের মধ্যে অন্যতম
  • ডিপ্লোমা ইন প্যারামেডিকেল কোর্স (৩ বছর মেয়াদী);
  • সার্টিফিকেট ইন ল্যাব টেকনোলজী (১ বছর মেয়াদী) এবং
  • সার্টিফিকেট ইন প্যারামেডিকেল টেকনোলজী (১ বছর মেয়াদী)।
  • এছাড়া অন্যান্য কোর্সগুলোর মধ্যে রয়েছে ফার্মা টেকনোলজি, ইসিজি/অপট্রমেট্রি, ইন্টিগ্রেটেড মেডিসিন, ডেন্টাল, প্যাথলজী, রেডিওলজি এক্সরে, ফিজিওথেরাপী, আল্ট্রাসনোগ্রাফি এবং পেশেন্ট কেয়ার। উল্লেখিত কোর্সগুলো বিভিন্ন মেয়াদী।

 ভর্তি সংক্রান্ত তথ্যাবলী

  • প্রতি বছর দুটি সেশনে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি নেওয়া হয়। প্রথম সেশন জানুয়ারী থেকে ডিসেম্বর এবং দ্বিতীয় সেশন জুলাই থেকে জুন পর্যন্ত।
  • এসএসসি বা সমমান যে কোন সালের পাশকৃত ছাত্র-ছাত্রীরা ভর্তি হতে পারবে। এসএসসি পরীক্ষায় ন্যূনতম ২.৫ জিপিএ পেতে হবে।
  • ভর্তি ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের নির্ধারিত ভর্তি ফরম ক্রয় করতে হয়। ভর্তি ফরমের মূল্য ১০০ টাকা।
  • ভর্তি ফরম পূরন করে এর সাথে শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র, মার্কশিট, প্রশংসাপত্রের সত্যায়িত ফটোকপি, জাতীয়তা বা নাগরিকত্ব সনদের সত্যায়িত ফটোকপি, পাসপোর্ট সাইজের ৩ কপি ও ষ্ট্যাম্প সাইজের ৩ কপি সত্যায়িত ছবি এবং অভিভাবকের অনুমতিপত্র জমা দিতে হয়।
  • ভর্তি পরীক্ষার সিলেবাস, সময়সূচী এবং নির্দেশিকা কলেজ কর্তৃপক্ষ সরবরাহ করে থাকে।
  • ছাত্র-ছাত্রী ভর্তির ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধা কোটা (২%) অনুসরণ করা হয়।

কোর্স ফি

এখানে পরিচালিত কোর্সের ফি এবং টিউশন ফি বিভিন্ন সময়ে ওঠানামা করে থাকে। ধরাবাধা নিয়মের মধ্যে কোর্সের নির্দিষ্ট কোন ফি প্রতিষ্ঠানের কর্ণধারের অনুরোধে প্রকাশ করা হলো না। তবে প্রতিষ্ঠানের ক্যাটালগে প্রাপ্ত কিছু ফি নিম্নে উল্লেখিত হলো:

  • ভর্তি ফিঃ ৭০০০ টাকা।
  • সেমিষ্টার ফিঃ ৭০০০ টাকা।
  • টিউশন ফিঃ ১০০০ টাকা।

এছাড়াও নির্ধারিত রেজিষ্ট্রেশন ফি, পরীক্ষার ফি এবং অন্যান্য ফি পৃথকভাবে প্রদান করতে হবে। ভর্তির পর পরিশোধিত টাকা ফেরৎযোগ্য নয়।

কোর্সের সুবিধাসমূহ

  • অন্যান্য পেশার চেয়ে সম্মানজনক পেশায় নিয়োগ লাভ।
  • কোর্স শেষে ডিপ্লোমা কোর্স করতে সুবিধা হয়।
  • কোর্স শেষে সহজেই সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিক এবং এনজিওতে চাকুরী লাভ করা যায়।
  • সমাজ সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করা যায়।
  • ডিপ্লোমা কোর্স শেষে বিএসসি এবং এমএসসি করা যায়।

.লাইব্রেরী সুবিধা

ইনষ্টিটিউট ভবনের দ্বিতীয় তলায় সুসজ্জিত লাইব্রেরী রয়েছে। এখানে ফার্মেসী, ডেন্টাল, সার্জারী এবং অন্যান্য কোর্স সম্পর্কিত বইয়ের সংগ্রহ রয়েছে। এখানে প্রাপ্ত বইয়ের সংখ্যা ২৫০০ টি। লাইব্রেরীতে বসে পড়ার ব্যবস্থা রয়েছে। লাইব্রেরী ব্যবহার করতে ৩০ টাকা দিয়ে লাইব্রেরী কার্ড সংগ্রহ করতে হয়।

ক্লাসরুম এবং ক্লাসের সময়সূচী

ক্লাসরুমগুলো মাল্টিমিডিয়াযুক্ত। ক্লাসে বসার জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক চেয়ার টেবিল রয়েছে। সাধারনত ক্লাসগুলো প্রতিদিন দুইটি শিফটে হয়ে থাকে; যেমন

  • ডে শিফট:সকাল ১০ টা থেকে বেলা ১ টা পর্যন্ত হয়ে থাকে।
  • ইভিনিং শিফট: দুপুর ১টা থেকে বিকেল ৪টা

শুক্রবার প্রতিষ্ঠানটি বন্ধ থাকার কারণে কোন ক্লাস হয় না।

অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য

  • এখানে স্থায়ী ভিত্তিতে ৪ জন এবং অস্থায়ী ভিত্তিতে ৬ জন শিক্ষক ক্লাস পরিচালনা করে থাকেন।
  • প্রতিমাসে একবার সেমিনারের আয়োজন করা হয়।
  • বিদেশে উচ্চশিক্ষা গ্রহণে সহযোগীতা করা হয়।
Print
error: Content is protected !!